Home / অন্যান্য / যা করব শুধু একবার প্লিজ দিতে দাও আজকেই ত শেষ…

যা করব শুধু একবার প্লিজ দিতে দাও আজকেই ত শেষ…

আগে পরিবারের বড়দের কাছ থেকে, তারপর বন্ধু বান্ধবীদের কাছ থেকে শুনতাম মানুষের বিভিন্ন ধরনের সমস্যার কথা। তখন নিজে নিজে ভাবতাম মানুষের জীবনে এগুলো কেন হয়? মানুষ এই ধরনের ভুলে কেন পড়ে? তখন ভাবিনি যে আমার জীবনেও এমন ঘটনা ঘটতে পারে।

আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের একব্যাচ জুনিয়র একটি ছেলে আমাকে হঠাৎ প্রপোজ করে। আমি তখন মানসিক ভাবে একটু দূর্বল ছিলাম। আমি তার প্রস্তাবে রাজি হয়ে যাই। আমি তাকে আমার আগের সম্পর্কের কথা বলে দিই। ওর সঙ্গে রিলেশন চলতে থাকে। সে ওর আম্মুর সঙ্গে আমাকে ফ্রেন্ড বলে পরিচয় করিয়ে দেয়। খুব ইমোশনাল হয়ে পড়ি। তবে ও আমাকে বিয়ে করবে- এ ধরনের কথা কোনদিন বলেনি।

শুধু একটাই কথা বলত, ওর পরিবার অনেক কনজারভেটিভ এবং সে ওর পরিবারের সিদ্ধান্তের বাইরে কখনই যেতে পারবে না। আমি বয়সে ওর চেয়ে দু’বছরের বড়- আমাদের সম্পর্ক ওর পরিবার মেনে নেবে না এটা আমি বুঝতে পারতাম। তবে ও আমার খুব কেয়ার করতো। আমরা প্রায় দেখা করতাম। কলেজ শেষ করে অনেক জায়গায় ঘুরতে যেতাম। একবার ওর এক বন্ধুর বাসায় আমরা যাই। বাসায় ওর বন্ধু ছাড়া আর কেউ ছিল না।, আমরা একটা রুমে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দিই। সেদিন ও আমাকে অনেক আদর করে। এক পর্যায়ে দুজনেই নিজেকে সামলাতে না পেরে আমরা শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ি। ওর সঙ্গেই আমার প্রথম শারীরিক সম্পর্ক হয়।

তারপর থেকে ওকে ছাড়া আমি কিছু চিন্তা করতে পারি না। যে কোনো মূল্যে আমি ওকে পেতে চাই। দ্বিতীয় বার আমি আর কষ্ট পেতে চাই না, আর ওকে না পেলে আমি আত্মহত্যা করবো। আমি কথাগুলো অন্য কাউকে বলতে পারছি না। আমি জানি আমি অনেক বড় ভুল করে ফেলেছি। আমার পরিবার আমার সঙ্গে আমেরিকায় সেটেল এক ছেলের বিয়ে ঠিক করেছে, যাকে আমার একদম পছন্দ হয়নি। আমি কি আমার পছন্দের ছেলেকে বিয়ে করে ফেলবো?

আমি ভালো ছাত্রী। একটা ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে স্কলারশীপে পড়ি। কিন্তু এখন পড়াশোনা করতে পারছি না। আত্মহত্যা করতে ইচ্ছে করছে। আমাকে একটি সমাধান দিন। আমি একটু শান্তিতে বাঁচতে চাই। ওর সাথে রিলেশন হওয়ার আগে এক ছেলের সঙ্গে আমার সাড়ে সাত বছরের প্রেম ছিল। উভয় পরিবার থেকে বিয়েও ঠিক ছিল, কিন্তু কিছু পারিবারিক সমস্যার কারণে শেষে বিয়েটা আর হয়নি। আমরা দুজন মেনে নিয়েছিলাম। শুধু মাঝে মাঝে কথা হতো। বিয়েটা ভেঙে যাবার পর আমার খুব খারাপ সময় যাচ্ছিলো, কিন্তু পরে ওর সান্যিধ্য পাওয়ার পর আমি একটু সুখে ছিলাম। কিন্তু এখন যদি ওকেও না পাই তাহলে আমার মরা ছাড়া উপায় থাকবেনা।

পরামর্শঃ-
প্রথমেই নিজের মনটাকে স্থির করুন। কারন আপনি অনেক জ্ঞানী একটা মেয়ে। আপনার দারা এমন গুরুতর ভুল মানায় না। আসলে আপনি নিজেও জানেন আপনার সাথে কি হতে পারে। তারপরও আপনি আশাই বুক বেঁধে আছেন। এটা একেবারেই ঠিক না। আপনি শুরু থেকেই বুঝতে পারছেন যে ছেলেটি আপনাকে বিয়ে করবে না। আর সেই কারনেই সে আপনাকে আগেই বলেছে যে, সে তার পরিবারের অনুমতির বাহিরে বিয়ে করবে না।

আর আপনি এটাও জানেন, যে আপনি তার বয়সে বড় হওয়ার ফলে তার পরিবার কখনই আপনাকে বউ হিসেবে মেনে নিবেনা। সে যদি আপনাকে বিয়েই করত তাহলে সে আগেই বলে দিত। আপনাদের শারীরিক সম্পর্কটা হয়ত আবেগের বসে হয়ে গেছে। কিন্তু সেটা আপনার জীবনের অনেক বড় একটা ভুল ছিল। কারন এখন আপনি চাইলেও হয়ত ছেলেটি আপনাকে বিয়ে করবেনা। তার রিলেশানটা ছিল আপনার সাথে শুধুই সময় পার করা। আপনি যেহেতু অনেক ভালো একজন ছাত্রী সেহেতু আপনার কোন কিছুর অভাব নেই।

যেকোন সময় নিজেই একটা ভালো কিছু করতে পারবেন। আমরা সবাই একটা কথা জানি আর সেটা হল, যে তুমি যাকে ভালোবাস তাকে নয়, যে তোমাকে ভালোবাসে তাকেই বিয়ে কর। এটা একদম সত্য কথা। এখন আপনার উচিত হবে আপনার পরিবারের কথা শোনা। কারন পরিবার কখনও কোন সন্তানের খারাপ চায় না। হয়ত প্রবাসী যে ছেলেটাকে আপনি পছন্দ করছেন না সে আপনাকে অনেক ভালো বাসতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *