Home / চুলের যত্ন / ত্বক ও চুলের যত্নে তুলসী পাতার রস এর ব্যবহার জানুন!

ত্বক ও চুলের যত্নে তুলসী পাতার রস এর ব্যবহার জানুন!

তুলসি গাছের আছে নানা গুণ। ওষুধ হিসেবে যেমন তুলসি পাতার রস সুপরিচিত তেমনি রূপচর্চায়ও এর নানাবিদ ব্যবহার রয়েছে। ত্বক ও চুলের যত্নে এটি বেশ কার্যকরী। জেনে নিন রূপচর্চায় তুলসি পাতার কিছু ব্যবহার-

ত্বকের যত্নে

১। ত্বকে ব্রণ থাকলে সেখানে প্রতিদিন ১৫ মিনিট করে তুলসী পাতা, লেবুর রস, গোলাপজল মিশিয়ে লাগাতে হবে।

২। ত্বকে জ্বলাপোড়া ভাব থাকলে তুলসী পাতা বাটা, চন্দন গুড়া ও ঠান্ডা পানি মিশিয়ে লাগিয়ে রাখতে হবে।

৩। ত্বকে যেকোন প্রকার দাগের উপর তুলসী পাতা বাটা ও বেসনের মিশ্রণ লাগালে দাগ ধীরে ধীরে কমে যায়।

৪। যাদের খুব ব্রণ উঠে তারা প্রতিদিন সকালে তুলসী পাতা চিবিয়ে খেতে পারেন, এতে ব্রণ উঠার সম্ভাবনা কমে যাবে।

৫। ত্বকে ছিদ্র থাকলে সেখানে ডিমের সাদা অংশ ও তুলসী পাতা বাটা মিশিয়ে লাগিয়ে রাখতে হবে ২৫ মিনিট।

৬। ত্বকে কোন রোগ হলে সেখানে তুলসী পাতা প্রতিদিন লাগাতে হবে। এতে রোগ সেরে যাবে। সরিষার তেলে কিছু তুলসীর পাতা দিয়ে জ্বাল দিয়ে রঙ গাঢ় করে বোতলে সংরক্ষণ করা যায়। এই তেল ত্বকে মালিশ করতে হবে প্রতিদিন।

৭। ভ্রু প্লাক, আপার লিপস বা ওয়াক্স করার পর চামড়া লাল হয়ে গেলে ও র‍্যাশ উঠলে সেখানে তুলসী পাতা বেটে লাগিয়ে রাখলে খুব দ্রুত সেরে যাবে।

চুলের যত্নে

১। চুলে খুশকি বেশি হলে তুলসী পাতার সাথে নারকেল তেল মিশিয়ে গোসলের ২ ঘন্টা আগে মাথায় ভালো করে লাগিয়ে শ্যাম্পু করতে হবে। এতে খুশকি কমে যাবে। একদিন পরপর এভাবে তেল লাগাতে হবে।

২। চুলের উজ্জ্বলতা ও স্বাস্থ্য বজায় রাখতে প্রতি সপ্তাহে ৩/৪ দিন তুলসী পাতার রস খেতে হবে।

৩। চুল পড়ার সমস্যা থাকলে তুলসি পাতা দিয়ে তেল বানিয়ে ব্যবহার করা যায়। এ তেল তৈরির জন্য চুলায় আধা কাপ নারকেল তেলের সাথে ২০-২৫ টি তুলসী পাতা জ্বাল দিতে হবে ১৫ মিনিট। তেল ছেকে নিয়ে এর সাথে ১ টেবিল চামচ ক্যাস্টর অয়েল ও ১ টেবিল চামচ অ্যামন্ড অয়েল মেশাতে হবে। ভালো ফলাফল পেতে এই তেল সপ্তাহে ৩ দিন চুলে ও মাথার ত্বকে লাগাতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *