Home / হাত পায়ের যত্ন / ঘরে বসেই খুব সহজে সেরে ফেলুন পেডিকিউর!জানুন পদ্ধতি গুলো

ঘরে বসেই খুব সহজে সেরে ফেলুন পেডিকিউর!জানুন পদ্ধতি গুলো

ইদানিং অনেক বেশি হাঁটাহাঁটি করা হয় আপনার? কিংবা অযত্নে-অবহেলায় পায়ের করুণ দশা হয়ে দাঁড়িয়েছে? পার্লারে গিয়ে পেডিকিউর করা অনেকের জন্যই ব্যয়বহুল হয়ে থাকে, আবার অনেকে খুব একটা সময় কুলিয়ে উঠতে পারেন না পার্লারে যাবার মতন। তাহলে কি পদযুগল যত্নহীন অবস্থাতেই পড়ে থাকবে দিনের পর দিন?

অল্প কিছু উপকরণের সাহায্যে বাসায় বসেই স্বাচ্ছন্দ্যে আপনি পেডিকিউর করতে পারবেন। শুধুমাত্র একটু ধৈর্য ও যত্নের প্রয়োজন। আর কিচ্ছু নয়। কথা না বাড়িয়ে চলুন জেনে আসি-

পেডিকিউর করার জন্য যা যা দরকার হবে আপনারঃ

– গামলাভর্তি গরম পানি,
– বাথ সল্ট বা শ্যাম্পু,
– ফুট স্ক্রাব,
– নেইল কাটার,
– নেইল ফাইল,
– পিউমিস স্টোন,
– ফুট ময়েশ্চারাইজার,
– একটি পরিষ্কার তোয়ালে,
– তুলোর বল।

প্রথমেই আসি নখের যত্নে
নেইলপলিশ রিমুভার দিয়ে প্রথমেই নখের নেইলপলিশ কিংবা নেইল আর্ট তুলে ফেলুন। অতঃপর নেইল কাটার দিয়ে পছন্দ মতন শেইপে নখ কেটে নিন। খেয়াল করে কাটবেন, খুব বেশি গভীরে যেন না কেটে ফেলেন। এরপর, নেইল ফাইলার দিয়ে নিখুঁতভাবে নখ ফাইল করে নিন।

পা ডুবিয়ে রাখুন
পেডিকিউরের এটিই সবচেয়ে আরামদায়ক পর্যায়। হালকা গরম পানিতে বেশ কিছুক্ষণ পা ডুবিয়ে রাখুন। খেয়াল করবেন যেন গোড়ালী পর্যন্ত ডোবানো যায়। আরামদায়ক অনুভব বাড়ানোর জন্য আপনি চাইলে পানিতে লবণ, লেবুর রস, গোলাপ পাপড়ি এবং শ্যাম্পু যোগ করতে পারেন। এতে করে পায়ের ত্বক নরম হবে এবং যেকোন ধরনের ব্যথা কমবে। এভাবে ১৫-২০ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। অতঃপর তোয়ালেতে পা মুছে নিন।

পায়ের মরা কোষ তুলে ফেলুন
এবার রেডিমেড কিংবা ঘরোয়া কোন স্ক্রাব দিয়ে ভালোমতন দু’পা ম্যাসাজ করুন। বাজারে বিভিন্ন ধরনের ফুট স্ক্রাব পাওয়া যায়। তবে ঘরোয়া স্ক্রাব ব্যবহার করলে উপকার পাবেন বেশি। তৈরির উপায় বলে দিচ্ছি- চিনি, মধু, লেবুর রস ও বাদাম তেল ভালোমতন মিশিয়ে দু’পায়েই লাগান এবং খুব ভালোমতন স্ক্রাব করুন। হাতের কাছে কিছুই না পেলে পিউমিস স্টোন দিয়ে সুন্দর করে ঘষে ফেলুন দু’পায়ের গোড়ালি। এতে করে পায়ের মরা কোষ খুব ভালোমতন উঠে যাবে এবং পা নরম ও কোমল হবে।

পায়ে ময়েশ্চারাইজার লাগান
ভালোমানের একটি ময়েশ্চারাইজার এবার পায়ে পুরুভাবে লাগিয়ে ফেলুন। আপনি চাইলে বাদাম তেল কিংবা জলপাই তেলও লাগাতে পারেন। পা নরম, কোমল ও নমনীয় হবে। এরপর চাইলে আপনি পছন্দসই রঙের নেইলপলিশে রাঙাতে পারেন নখগুলো।

ব্যস! হয়ে গেলো ঘরে বসেই সহজ ও ঝামেলাবিহীন পেডিকিউর। খুব ভালো ফলাফল পাবার জন্যে পনেরো দিন পর পর এভাবে করুন পেডিকিউর। পা’জোড়া সব সময় সুস্থ ও সুন্দর থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *